মিমিকে দেখে ট্যা’ক্সি চা’লকের বাজে ই’ঙ্গিত, তারপর

মিমি চক্রবর্তী

ট্যাক্সি থেকে কটূক্তি, অ’শ্লী’ল অ’ঙ্গভ’ঙ্গি ও ই’ঙ্গিত ক’রায় গাড়ি থেকে নেমে সোম’বার বেশি রাতে এক ট্যা’ক্সিচা’লককে পুলি’শের হাতে দি’লেন সাংসদ-অভিনে’ত্রী মিমি চক্র’বর্তী।

মিমি জি’ম থেকে বাড়ি ফির’ছি’লেন। ওইদিন গভী’র রা’তে বালি’গঞ্জ এবং গ’ড়িয়া’হাটের মাঝা’মা’ঝি এলাকা’য় ট্র্যাফিক সিগ’নালে যখন মি’মির গাড়ি দাঁড়ি’য়েছিল, তখন একটি ট্যাক্সি’ তাঁর গাড়িকে ওভারটে’ক করে। মিমি কাচ না’মিয়েছি’লেন। তখনই তিনি লক্ষ্য করেন, পাশে দাঁড়া’নো ‘ট্যাক্সিটির চালক তাঁর দিকে অ’শ্লী’ল অ’ঙ্গ’ভঙ্গি কর’ছে। দ্রুত গাড়ি থেকে না’মেন মিমি। ট্যা’ক্সিচাল’ককেও টেনে নামান। ধম’কে বলেন, তাকে পু’লিশে দেওয়া হবে। তত’ক্ষণে রা’স্তায় লোক জ’মে গেছে।

মিমি যোগা’যোগ করেন পু’লিশের সঙ্গে। পুলিশ দ্রুত ‘ঘটনা’স্থলে আ’সে ঘটনা জেনে অভিযুক্ত চালকের খোঁ’জ শুরু করে। রাতেই তাকে গ্রে’প্তার করা হয়।

ঘট’না’চক্রে, ওই’দিন মিমির দে’হর’ক্ষী তাঁর সঙ্গে ছিলেন না। ম’ঙ্গলবা’র মিমি বলেন, ‘সর’কারি গাড়ি দেখেও যদি এক ট্যাক্সি’চালক তার আরো’হীকে উ’দ্দেশ্য করে প্রকাশ্যে এমন অ’শ্লী’ল অ’ঙ্গভ’ঙ্গি ও মন্তব্য কর’তে পারে, তা হলে সাধারণ মানু’ষের কী অব’স্থা হতে পারে!’ মিমি জা’নান, সে কার’ণেই তিনি কাল’ক্ষেপ না করে গাড়ি থেকে’ নেমে প্র’তিবাদ করেন এবং পু’লিশে’র কাছে অভি’যোগ জানান।

কলকাতা পুলিশ জানা’য়, ‘সো’মবা’র রাত ১টা নাগা’দ বা’লিগঞ্জ ফাঁ’ড়ির কাছে ক্রমাগত হর্ন দিতে দিতে মিমি’র গা’ড়িকে ওভারটেক করে একটি ট্যাক্সি। মিমি গাড়ি থেকে নেমে ট্যা’ক্সি’টি দাঁড় করান। তখন ট্যা’ক্সিচালক মিমির উদ্দেশে অনবর’ত কটূক্তি করে। অ’শ্লী’ল অ’ঙ্গ’ভঙ্গিও করে। সাংসদ দ্রুত এক কর্তব্য’রত সার্জে’ন্টের সঙ্গে যো’গাযোগ করেন।

মিমি চক্রবর্তী

পুলি’শের বক্তব্য, ওই সা’র্জেন্ট আধ ঘ’ণ্টার মধ্যে ‘ট্যাক্সি-সহ চালককে আটক করেন। ওই চালকের নাম দেবা যাদব। বয়স ৩২ বছর। তাকে গ্রে’ফতার করা হয় বাইপাসের ধারে আন’ন্দপুর থানা এলাকা থেকে। ধৃতের বি’রু’দ্ধে শ্লী’ল’তাহানি, অ’শ্লী’ল ইঙ্গিত এবং কটূক্তির ধারায় গ’ড়িয়া’হাট থা’নায় একটি মা’মলা মা’ম’লা করা হয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*