অ’শ্লীল নায়িকা: এখনো রমরমা উপার্জন

মুনমুন-ময়ূরী

এক সময়ে রুপালি পর্দা দাপিয়ে বেড়িয়ে’ছে’ন চিত্রনা’য়িকা মুন’মুন,ম’য়ূরী, পলি, ঝুমকা, মেঘা, শা’প’লাসহ আরো অনেকে। তাদের রা’জত্বের সময়’কে চলচ্চি’ত্রে চি’হ্নিত করা হয় ‘অ’শ্লীল’তার যুগ’ বলে। ২০০৬ পরবর্তী সময়ে চলচ্চি’ত্রে সু’স্থ পরিবেশ ফিরে আসায় নিজেদের অবস্থান হারিয়ে ফে’লেন তারা। চল’চ্চিত্র থেকে দূরে সরে যেতে হয়। ব্যক্তিগত জী’বন নিয়ে দুয়েকজন খ’বরে এলেও বেশির ভাগে’রই খবর নেই। কী কর’ছেন তারা?

চলচ্চি’ত্রে সুস্থ পরিবেশ ফিরে এলে ওইস’ব না’য়িকারা ‘আ’খের’ গুছি’য়ে চলচ্চিত্র থেকে নি’জেদে’র গুটি’য়ে নেন। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তাদের কে’উ প্রবাসী হয়েছেন, কেউ হয়ে’ছেন সংসা’রী। তবে মুনমুন-ময়ূরী অভিনয় থেকে দূরে থাকলেও স্টেজ শো এবং সার্কা’সের মঞ্চে এখনো দর্শক মা’তিয়ে যা’চ্ছেন! আর সেখান থেকে যা আয় কর’ছেন তা সিনে’মার চেয়ে কো’নো অংশে কম নয়!

এই ক’রোনা’কালেও তাদের আয় বাণি’জ্য ভালো’ই চলছে। যেমন ‘কিছুদিন আ’গেই মুনমুন এক মস’জিদের সা’মনে নে’চে নতুন করে সমালোচনার জন্ম দেন। এরপর শো’না যায় তার তৃতীয় স্বা’মীর সঙ্গে ডি’ভো’র্সের খবর।

মুনমু’ন-ময়ূরী’র এক ঘ’নিষ্ঠ’জনের বরাতে জানা গেছে, রম’যান মাস ব্য”তীত বাকি ১১ মাসই স্টেজ শো, সা’র্কা’সের ম’ঞ্চে পা’রফর্ম করায় তু’মুল ব্যস্ত থা’কতেন মুনমু’ন-ম’য়ূরী। তবে ময়ূরী গেল বছর এক মাওলানাকে বিয়ে করে এখন ধর্ম পা’লন করেন।

অন্যদিকে দে’শের নামী সার্কাস পার্টির মধ্যে গ্রেট রওশন, লায়ন, অলিম্পিক, নিউ স্টার, রাজমনি, সাধনা-এসব সার্কা’স পা’র্টির মালি’ক’রাই নিয়মিত যোগাযোগ রেখে শো করান মুন’মুনকে দিয়ে। ওই সব সার্কাসের মঞ্চে দাপটের সঙ্গে কাজ করছেন। গ্রাম-গঞ্জে মুনমু’নের না’মে’ই মুহূ’র্তে সব টিকেট শেষ হয়ে যায়! তাদের আ’গম’নের খবরে লোকে লোকা’রণ্য হয়ে যায় ওই সব সা’র্কাস অনুষ্ঠা’ন!

জানা যায়, সা’র্কাসে প্রতি’দিন ৩টি শো থাকে। তিন শো’তেই এক’বার ম’ঞ্চে উঠেন মুনমুন-ময়ূরী। যাতা’য়াত, থাকা-খাওয়া বাদে প্রতি অনুষ্ঠান থেকে প্রায় ৫০ হা’জার টাকা করে পারি’শ্রমি’ক নেন তারা। দুদিনে চুক্তি থাকে এক লাখ টাকা। তবে এখন ক’রো’নার সময় শো বন্ধ। তারা ব্য’ক্তিগ’তভাবে গিয়ে নেচে টাকা পায়।

নায়িকারা

তিনি বলেন, মাসের ২০-২৫ দিনই কোনো না কোনো সার্কাস অ’থবা স্টে’জে শো থাকতো তাদের। মুনমুন-ময়ূরী যে সা’র্কাস পার্টি’তে থাকেন সেখানে লো’কসা’নের কোনো প্রশ্নই আসে না। মানুষের কাছে তা’দের চাহি’দা ব্যাপক।

জানা যায়, স্টেজে ময়ূ’রী জু’টি বাঁ’ধতেন রানা নামে এক মিউ’জিক ভি’ডিওর মডেলের সঙ্গে। মুনমুন পার’ফর্ম করতেন তার স্বামী রোবে’নে’র সঙ্গে। এছাড়া মেঘা পা’র’ফর্ম করেন সংগ্রাম নামে একজন চল’চ্চিত্র অ’ভিনেতা’র সঙ্গে।

এছাড়াও প্রতিমাসে একাধিকবার শো করেন চিত্রনায়িকা রত্না, জেসমিন প্রমুখ। তবে সারাদেশে সার্কাস-স্টেজ শো নিয়ে সবচেয়ে বেশি ব্যস্ততা থাকে নাসরিন ও শ্রাবণ খানের। তারা সার্কাস-স্টেজ শো’র অ’ঘো’ষিত ‘কিং-কুইন’। কয়েক বছরে জুটি বেঁ’ধে শতা’ধিক সার্কা’স পার্টি ও হা’র স্টেজ শো মাতি’য়ে’ছেন তারা।

ক’য়ে’কটি চলচ্চিত্রেও কাজ করে’ছেন শ্রাবণ খান। তিনি বলেন, বছরের প্রায় ১১ মাসই ব্যস্ততা থা’কে স্টে’জ অ’নুষ্ঠান নিয়ে। সঙ্গে থাকেন নাসরিন। স্টেজে আ’মাদে’র জুটির রসা’য়নই অন্য’রকম। এতো পরি’মাণে শো’র প্র’স্তাব আসে সিডি’উল মেলাতে সম’স্যায় পড়ে যাই। অনেক সময় আ’মি যেতে না পারলে মুনমুন, ময়ূ’রী’সহ অন্য যারা আছে তাদের দেই। তাদেরও প্রচুর চাহিদা রয়েছে। মাসের বেশিরভাগ সময় তারা এ কাজে ব্যস্ত থাকেন। বলতে গেলে, প্রতি’মাসে সি’নে’মায় কা’জের চেয়ে এখানে ক’য়ে’কগুণ বেশি উ’পার্জ’ন হয়। কিন্তু ক’রো’নার কারণে ৫/৬ মাস কা’জ কর’তে পা’রিনি। এখন আ’বার শুরু হচ্ছে অল্প অল্প করে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*