বিয়ের পর প্রথম পূজায় মিথিলার যত আয়োজন

সৃজিত-মিথিলা

বহু আলোচনা আর সমালোচনার পর কলকাতার জনপ্রিয় পরিচালক সৃজিত মুখার্জির ঘরের বউ হয়েছেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী রাফিয়াথ রশিদ মিথিলা। তবে বিয়ের পর সেভাবে সংসার করা হয়ে ওঠেনি দুজনের। তাই তো করোনার বাধা মাড়িয়ে ১৫ আগস্ট বিশেষ অনুমতি নিয়ে সড়কপথে শ্বশুরবাড়ি গিয়েছেন মিথিলা।

সেখানেই কাটবে তাঁর এবারের পূজা। বিয়ের পর প্রথম পূজা বলে কথা, সে জন্য চলছে বিশেষ আয়োজন। তবে এই পূজাকে প্রথম পূজা বলতে নারাজ মিথিলা। মিথিলার ভাষ্য, ‘এটা আমার প্রথম পূজা নয়। গত বছরও দু-তিন দিন পূজার সময় এখানে ছিলাম। তবে হ্যাঁ, বিয়ের পর এটা আমার প্রথম পূজা।’

কলকাতার গণমাধ্যম জি২৪ ঘণ্টা বাংলাকে এক সাক্ষাৎকারে মিথিলা জানিয়েছেন, এবারের পূজায় সৃজিত তাঁকে বিশেষ উপহার দেবেন। তবে সেটা বাংলাদেশেই অর্ডার দেওয়া হয়েছে। মিথিলার পছন্দের ডিজাইনার তাঁর জন্য বানাচ্ছেন জামদানি। সেটাই এবার স্বামী সৃজিতের কাছ থেকে বিশেষ উপহার হিসেবে পাচ্ছেন বাংলাদেশের এই অভিনেত্রী।

ওই সাক্ষাৎকারে মিথিলা আরো বলেন, ‘সৃজিতের জন্য পূজার স্পেশাল গিফট হিসেবে বাংলাদেশ থেকে পাঞ্জাবির কাপড় এনেছি। আমাদের দুজনেরই সুকুমার রায় খুব পছন্দ। সুকুমার রায়ের কবিতা লেখা আমার একটা শাড়ি আছে, ওই একই কাপড়ের সৃজিতের পাঞ্জাবি। এটা অর্ডার দিয়ে বানানো হয়েছে।’

সৃজিত-মৃথিলা

এ ছাড়া পূজায় মিথিলা শাশুড়ির কাছ থেকে উপহার পেয়েছেন সালোয়ার-কামিজ, তাঁর শাশুড়িকে মিথিলা গান শোনার জন্য উপহার দিয়েছেন অ্যালেক্সা। এর বাইরে খুব দ্রুতই শান্তিনিকেতন বেড়াতে যাবেন মিথিলা। সেখানে গিয়ে কেনাকাটা করবেন। শান্তিনিকেতনে হাতে বানানো শাড়ি মিথিলার খুব পছন্দ, সে কথা জানিয়েছেন শাশুড়িকে।

গত বছর বহু আলোচনার পর ৬ ডিসেম্বর বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন সৃজিত-মিথিলা। এরপর মধুচন্দ্রিমা সেরেছেন সুইজারল্যান্ডে। চলতি বছরের ২৯ ফেব্রুয়ারি সেরেছেন বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*